দুপুর ১:০৯ - ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

বাবরিতেই হবে রাম মন্দির, মসজিদের জন্য আলাদা জায়গা

print

চট্টলা ডেস্ক  

 

ভারতের অযোধ্যায় কট্টরপন্থী হিন্দুদের ভেঙ্গে দেয়া বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দির বানানোর অনুমতি দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। একই সাথে মসজিদ তৈরির জন্য রাষ্ট্রকে জমি প্রদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে৷

অাজ শনিবার ( ৯ নভেম্বর) ভারতের সুপ্রিম কোর্ট এই রায় প্রদান করেন।

অযোধ্যার বিতর্কিত জমিটি নিয়ে নিম্ন আদালতে মামলা দায়ের হওয়ার ঠিক ৭০ বছর পর এই রায় দিলেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত।

১৯৯২ সালে কট্টর হিন্দুরা বাবরি মসজিদ ভেঙে ফেলার পর হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গায় প্রায় দুই হাজার লোকের মৃত্যু হয়েছিল।

বাবরি মসজিদ আর রাম মন্দির নিয়ে বিতর্ক কয়েক শতাব্দী ধরে। এ নিয়ে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে বারে বারে দাঙ্গা হয়েছে। ব্রিটিশ সরকার ভেতরের অংশটা মুসলিমদের আর বাইরে চত্বরটা হিন্দুদের ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছিল। কিন্তু ১৯৪৯ সালে মসজিদের ভেতরে কে বা কারা রামের মূর্তি রেখে দেয়। মুসলিমরা তখনই প্রতিবাদ করেন এবং সরকার জমিটিকে বিতর্কিত ঘোষণা করে তালাবন্ধ করে দেয়।

এরপর জমির মালিকানা কার সেটা ঠিক করতে সেবছরই আদালতে প্রথম মামলা হয়। পরে ফৈজাবাদের জেলা আদালত ১৯৮৬ সালে তালা খুলে হিন্দুদের পূজার অনুমতি দেন। আর তখন থেকেই সেখানে আন্দোলন জোরদার হয়ে ওঠে।

২০১০ সালে এলাহাবাদ হাইকোর্ট নির্দেশ দেয়, বিতর্কিত জমিটি তিনভাগ হবে- দুভাগ পাবেন হিন্দুরা আর এক ভাগ পাবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। এই রায়ের বিরুদ্ধে সবপক্ষই সুপ্রিম কোর্টে যায় ২০১১ সালে। সুপ্রিম কোর্ট আদালতের বাইরে সব পক্ষকে নিয়ে সমাধানের চেষ্টা করেছিল। কিন্তু তা ব্যর্থ হওয়ায় মামলাটি বিশেষ বেঞ্চ শুনানি শুরু করে। একটানা ৪০ দিন শুনানি হওয়ার পরে রায় লেখার জন্য মাসখানেক সময় নেন সুপ্রিম কোর্ট বেঞ্চ।

print